ডায়োজেনিসের সেরা ১৩ উক্তি

Reading Time: 2 minutes

ডায়োজেনিস এক সুপারস্টার  দার্শনিক। অতি খ্যাতির কারণে তার দর্শন অনেক সময় আড়ালে চলে যায়। খ্যাতির পর্দা টেনে ডায়োজেনিসের অন্ধরমহলে প্রবেশ করলে বর্তমানেও জ্ঞানপিয়াসী, জীবন নিরীক্ষাকারী ব্যক্তিরা অনেক মালমসলা পাবেন।বর্তমানে যেরকম তোতাপাখির মতো মুখস্ত স্লোগাননির্ভর ও তোষামোদিমূলক জীবনযাপনের সঙ্গে তরুণ প্রজন্ম পরিচিত তাতে বড় ধাক্কা দিতে সম্ভব ডায়োজেনিসের দর্শন। আধুনিক ভোগবাদি চিন্তার বিপরীতে শক্তিশালী ডিসকোর্স হাজির করতে পারেন ডায়োজেনিস। এজন্য কোন শতক বা কোন যুগেই ডায়োজেনিসের অনুসারী বা অনুরাগীর অভাব ছিল না। প্লেটো (খ্রি.পূ. ৪২৮-খ্রি.পূর্ব ৩৪৭) যেখানে তার দর্শনের কারণে আলোচিত ও সমাদৃত হচ্ছেন তার জুনিয়র সমসাময়িক ডায়োজেনিস (খ্রি.পূ. ৪০৪-খ্রি.পূ. ৩২৩) দর্শনের চেয়ে জীবনাচরণ, জীবনবোধের জন্য আলোচিত হচ্ছেন। খুব অল্প পাঠকই তার দর্শনের সঙ্গে পরিচিত হতে আগান। এখানে ডায়োজেনিসের ১৩ টি উক্তি উপস্থাপন করা হলো। আশা করি অনুসন্ধিৎসু পাঠককুল এখান থেকে ভাবনার অনেক উপকরণ পাবেন।

১. প্রজ্ঞাবান উপদেষ্টা থাকা শাসকের সৌভাগ্য। তবে প্রজ্ঞাবান উপদেষ্টা বাছাইয়ে শাসককেও প্রজ্ঞাবান হতে হয়।

২. রাতের খাবারের আদর্শ সময় কখন এ প্রশ্নের জবাবে ডায়োজেনিস বলেন, যদি তুমি ধনী হও তাহলে তোমার যখন ইচ্ছা তখন, আর যদি গরীব হও তাহলে যখন পাও।

৩. অন্যসব কুকুর শুধু তাদের শত্রুদের কামড়ায়। আমি আমার বন্ধুদেরও কামড়াই যাতে তারা রক্ষা পায়।

৪. তুমি যদি ঠিকপথে থাকতে চাও তাহলে হয় তোমার ভালো বন্ধু থাকতে হবে নচেৎ তোমার প্রচণ্ড শত্রু থাকতে হবে। একজন তোমাকে সতর্ক করবে এবং অপরজন তোমাকে উদ্ভাসিত/প্রকাশিত/ অনাবৃত করবে।

৫. প্লেটো যখন বলে, আমন্ত্রণ গ্রহণ করে আমি যদি সিসিলিয় রাজ দরবারে যেতাম তাহলে জীবনধারনে আমাকে লেটুসপাতা ধুতে হতো না-তখন আমি তাকে বলি সে যদি লেটুস পাতা ধুয়ে জীবনধারণ করতো তাহলে সিসিলির রাজদরবারে যেতে হতো না।

৬. যদি কারো অনুভূতিতেই আঘাত হানতে না পারে তাহলে সে কেমনতর দার্শনিক?

৭. যেরকমটা দাবি করা হচ্ছিল বেঁচে থাকা খারাপের কিছু নয় তবে তুচ্ছ জীবন যাপন করা সবচেয়ে খারাপ।

৮. জেগে থেকে যা দেখি তা বুঝাপড়ার চেয়ে ঘুমে দেখা স্বপ্ন ব্যাখ্যায় আমরা অতি উৎসাহী।

৯. যেসব মানুষ শুধু সুন্দর কথা বলে কিন্তু কিছুই করে না তারা বাদ্যযন্ত্রের মতো, যা কেবল শব্দ উৎপাদন করতে পারে।

১০. মানুষ দার্শনিকদের চেয়ে অন্ধ ও পঙ্গুদের ভিক্ষা দিতে পছন্দ করে কারণ তারা অন্ধ ও পঙ্গু হতে ভয় পায়, দার্শনিকতাকে নয়।

১১. আমাদের দুটি কান এবং একটি জিহ্বা যাতে আমরা বেশি করে শুনি এবং কম কথা বলি।

১২. নালা-নর্দমা ও মলকুণ্ডে আলো ছড়ালেও সূর্য্য নোংরা হয়ে যায় না।

১৩. যদি কোন ব্যক্তির কাছ থেকে কোন কিছু শিখতে পারি তাহলে এমন কোন শক্ত দণ্ড নেই যা আমাকে তাড়াতে পারে।

আরো পড়তে চাইলে:

ডায়োজেনিসের-বচনামৃত

প্রকাশক:ঐতিহ্য, গায়েরদাম:১৮০টাকা

রকমারিতে: https://www.rokomari.com/book/197560/diogeneser-bochonamrito

Spread the love

Related Posts

Add Comment

error: Content is protected !!