বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম: প্রস্তুতি ও এগিয়ে যাওয়ার দুটি বছর

Reading Time: 6 minutes

গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর এবং তৎপরবর্তী ঘটনাপ্রবাহে নিহত হওয়া, নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হওয়া, গুম হওয়া, চিরতরে হারিয়ে যাওয়া শহীদ বুদ্ধিজীবীদের। প্রতিটি শোকের ঘটনা, দুঃখের ইতিহাস আমাদেরকে আহ্বান করে আর যেন এমনটা না হয়, আর যেন এমনটা করতে দেওয়া না হয়। ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবীদের হত্যা ও গুমের মাধ্যমে যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনো পূরণ হয়নি, পূরণ হওয়ার মতো নয়। তারপরও এই শোক থেকে আমরা শক্তি নিতে পারি, নতুন উদ্যমে জেগে উঠার প্রত্যয় নিতে পারি। সেই স্বপ্ন, আকাঙ্খাকে সামনে রেখে ২০১৪ সালের ১৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম (বিডিএসএফ) তার যাত্রা শুরু করে। আমরা মনে-মগজে-চেতনায় স্মরণ করি, জাগ্রত রাখি সেইসব দেশসেরা জ্ঞানী-গুণী লোকদের কথা এবং তাদের দেখানো পথে এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা খুঁজি। মাত্র দুই বছরের মধ্যে স্টাডি ফোরাম যা করেছে তা অনুপ্রেরণা জাগানিয়া।

বুক টক ও আইডিয়া টক

বুক টক ও আইডিয়া টক

বাংলাদেশের অতীত পাঠ, পুনর্পাঠ, বর্তমানকে ধারণ, অনুধাবন এবং বর্তমান সমস্যা পাঠ ও সমাধান অনুসন্ধান ও সমাধান সম্পন্ন করা এবং ভবিষ্যতের দিক নির্দেশনা দেয়ার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করা বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম তার কর্মকাণ্ড পরিচালনা শুরু করে ২০১৪ সালের ১৪ ডিসেম্বর। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এবং বাংলাদেশ তৈরিতে বুদ্ধিজীবী ও জ্ঞানী-গুনী লোকদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এবং ভবিষ্যতেও তাদের দায় ও গুরুত্বের কথা মনন ও মাথায় রেখে এই যাত্রা শুরু।

bakhtiarsir

রাবিতে বখতিয়ার স্যারের নৃ-তত্বের ক্লাস! ঘাসের উপর মনোযোগী ছাত্ররা!

এখন বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম কাজ করে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, সরকারী তিতুমীর কলেজ ও কবি নজরুল কলেজ সহ বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। এছাড়া বিডিএসএফ এর উন্মুক্ত পাবলিক লেকচারগুলোতে ঢাকার প্রায় সবগুলো পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক সহ বিভিন্ন পেশার মানুষ অংশ নিয়ে আসছেন।

ক্লাস এইট পড়ুয়া বিজ্ঞান বক্তার অসাধারণ বক্তৃতা! ধন্যবাদ রাহাত আল মামুন ধ্রুব

ক্লাস এইট পড়ুয়া বিজ্ঞান বক্তার অসাধারণ বক্তৃতা!
ধন্যবাদ রাহাত আল মামুন ধ্রুব

প্রতিষ্ঠার পর থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যবাহী ডাকসু ভবনে এখন পর্যন্ত ৮১ টি পাবলিক লেকচার আয়োজন করেছে বিডিএসএফ। নব্বই মিনিটের পাবলিক লেকচারে একজন বক্তা তার নির্বাচিত বিষয়ের উপর জ্ঞানগর্ব আলোচনার করার জন্য সময় পান সর্বোচ্চ চল্লিশ মিনিট। বক্তার বক্তব্য শেষে উপস্থিত সকলে অংশ নেন। বক্তার বক্তব্য এবং উপস্থিত অংশগ্রহণকারীদের সংযোগ মিলে একটি প্রাণবন্ত পরিবেশে জ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় সাতার কাটেন বিডিএসএফ এর সদস্যরা। বিডিএসএফ এর সদস্যদের আত্মোন্নয়নের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চ্যাপ্টার প্রতি মঙ্গলবার আয়োজন করছে বুক টক ও আইডিয়া টক। এক সপ্তাহের পঠিত বই এবং সপ্তাহের সেরা আইডিয়াগুলো শেয়ার করা হয় সেখানে। এর ফলে বিডিএসএফ সদস্যরা প্রতিনিয়ত ঋদ্ধ হচ্ছেন।

পুরান ঢাকায় স্টাডি ক্যাম্প! আহসান মঞ্জিলে বিডিএসএফ টিম!

পুরান ঢাকায় স্টাডি ক্যাম্প!
আহসান মঞ্জিলে বিডিএসএফ টিম!

এছাড়া প্রতিদিনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির পাশে সন্ধ্যায় আড্ডা জমে। আড্ডায় যুক্ত হন বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণ বিদ্যার্থী থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সাংবাদিক, লেখক, গবেষক, শিল্পী বা সাহিত্যিক। সারাদিন পঠিত বিষয় কিংবা মাথার ভেতরে কাজ করতে থাকা কোন প্রশ্ন নিয়ে আড্ডা জমে, তর্ক উঠে, আলোচনা আগায়।

habiba

প্রথম দিককার একটি সাপ্তাহিক লেকচার। প্রধান আলোচক ছিলেন হাবিবা নওরোজ হ্যাপি

এ বছরের প্রথম দিকে বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম কাজ শুরু করেছে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে। প্রতি মাসে একটি বিশেষ লেকচারের সাথে সাথে প্রতি সপ্তাহে একটি সাপ্তাহিক আড্ডার আয়োজন করে যাচ্ছে বিডিএসএফ, শেকৃবি। দুইমাস আগে কাজ শুরু করে সরকারি তিতুমীর কলেজ চ্যাপ্টার ছয়টি সাপ্তাহিক লেকচার আয়োজন করেছে। এছাড়াও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত সাপ্তাহিক ও মাসিক বিভিন্ন প্রোগ্রামাদি অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

book-onnesha

দুইমাসে বিশটি বই পড়ার চ্যালেঞ্জ নিয়ে অন্বেষা প্রকাশনীর কাছ থেকে বই উপহার!

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের মেধাবী ছাত্র তানজির সরকারের কাছে তাই, “বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম (বিডিএসএফ) শুধু একটি সংগঠন নয়, একটি প্লাটফর্ম। জ্ঞানপিপাসু সবার জন্য এ দ্বার উন্মুক্ত। স্টুডিয়াস সকল চিন্তকদের একটি আলোর বিচ্ছুরণ। এগিয়ে যাচ্ছে সারা দেশে, ক্রমান্বয়ে সারা পৃথিবীতে।”

লাইব্রেরির সামনে এবং হাকিম চত্তরে জমে গরম আড্ডা, সাথে থাকে চা আর বিশিষ্ট জন!

লাইব্রেরির সামনে এবং হাকিম চত্তরে জমে গরম আড্ডা, সাথে থাকে চা আর বিশিষ্টজন!

এই ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও বাংলাদেশ স্টাডি ফোরামের দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে একটি আন্তর্জাতিক কনফারেন্সের আয়োজন পুরোদমে চলছে। আগামী ২২-২৩ ডিসেম্বর আয়োজিত উক্ত কনফারেন্সে ডজনখানেক দেশ থেকে প্রথিতযশা পণ্ডিতগণ তাদের গবেষণাপত্র পেশ করবেন। তাদের সাথে অংশ নিচ্ছেন বাংলাদেশের শিক্ষক, গবেষক, একাডেমিশিয়ান ও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ। নবীন-প্রবীণের সমণ্বয়ে একটি জ্ঞানের উৎসব হবে সে কনফারেন্স এই আশা করা হচ্ছে।

এই ছোট্ট ছেলেটেই সাগর বড়ুয়া! তার প্রথম লেকচার! দেখা যাক কতদূর হাঁটেন তিনি!

এই ছোট্ট ছেলেটিই সাগর বড়ুয়া! তার প্রথম লেকচার! দেখা যাক কতদূর হাঁটেন তিনি!

বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মেহেদী কাউসার তাই মনে করেন, ‘”বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম হচ্ছে সেইসব স্বপ্নবাজ মানুষদের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস, যাঁরা জ্ঞানভিত্তিক টেকসই পৃথিবী বিনির্মাণে অঙ্গীকারাবদ্ধ এবং বুদ্ধিবৃত্তিক সমাজ গঠনে সদা যুদ্ধরত সৈন্যদল।”

দৈনিক বুক টক ও আইডিয়া টক!

দৈনিক বুক টক ও আইডিয়া টক!

সত্যিই জ্ঞানের প্রতিটি শাখায় অবদান রাখা এবং একটি সুখী, শান্তিপূর্ণ, সমৃদ্ধ ও সমতার ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠিত দেশ গঠনের প্রক্রিয়া নিরন্তর কাজ করে চলার ব্যাপারে দৃঢ় প্রত্যয়ী বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম (বিডিএসএফ)।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহরাওয়ার্দী হলে বিডিএসএফ পাবলিক লেকচার!

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহরাওয়ার্দী হলে বিডিএসএফ পাবলিক লেকচার!

স্টাডি ফোরামের সদস্যদের আত্মোন্নয়নের জন্য বিভিন্ন স্টাডি প্রোগ্রাম হাতে নিয়েছে বিডিএসএফ। আমাদের নতুন বন্ধুরা প্রথমে আড্ডায় ও সাপ্তাহিক লেকচারে অংশগ্রহণের মাধ্যমে স্টাডি ফোরামের সাথে যুক্ত হন। আড্ডায় অংশগ্রহণের ফলে তার মাথায় প্রশ্নের উদ্ভব ঘটে, জানার প্রতি আগ্রহ, জ্ঞানের প্রতি ভালোবাসা তৈরি হয়। সে বন্ধুদেরকে তখন ‘সপ্তাহে একটি বই’ পড়ার প্রোগ্রামে যুক্ত করা হয়। সপ্তাহে একটি বই পড়তে অভ্যস্ত হয়ে পড়লে এবং জানার প্রতি আগ্রহ আরও তীব্র হয় তখন তাদেরকে দুইমাসে বিশটি বই পড়ার প্রোগ্রাম ‘টি-টুয়েন্টি’তে যুক্ত করা হয়! দুইমাসে বিশটি বই পড়ার চ্যালেঞ্জে যারা সফল হন তাদেরকে আরও দীর্ঘ ও দৃঢ় পাঠাভ্যাস তৈরির জন্য চারমাসে পঞ্চাশটি বই পড়ার প্রোগ্রাম ‘ওডিআই’ এ যোগ করা হয়। বাংলাদেশের জনপ্রিয়তম খেলা ক্রিকেট থেকে শব্দগুলো নেওয়া হয়েছে যাতে বন্ধুরা আনন্দের সাথে পড়ার বিষয়টি গ্রহণ করতে পারে।

পদ্মার চরে পদ্মা নদীর ইতিহাস জানছি!

পদ্মার চরে পদ্মা নদীর ইতিহাস জানছি!

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আলিফ চৌধুরীর কাছে স্টাডি ফোরাম তাই, ‘শত ব্যস্ততা এবং অন্তর্জালের প্রভাব দূরে সরিয়ে রেখে তরুণ সমাজের জন্য পাঠ্যাবস্থা চর্চাক্ষেত্র হিসেবে বিডিএফ নবীন তথাপি চমৎকার উদ্যাগ হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে।’

পদ্মার বোটে বিডিএসএফ টিম!

পদ্মার বোটে বিডিএসএফ টিম!

পড়াশুনায় বৈচিত্র্য আনা এবং প্রকৃতির সাথে সম্পর্ক স্থাপনের জন্য বিডিএসএফ নিয়মিত বিভিন্ন স্টাডি ক্যাম্পের আয়োজন করে যাচ্ছে। প্রকৃতি থেকে শিখি- এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গত ১২ নভেম্বর ২০১৬, শনিবার বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম মানিকগঞ্জের বালিয়াতি জমিদার বাড়ি ও টাঙ্গাইলের পাকুটিয়া জমিদার বাড়িতে একটি দিনব্যাপী স্টাডি ক্যাম্প-এর আয়োজন করে। বইয়ের জ্ঞানকে বাস্তব দুনিয়ার সাথে মেশানো এবং প্রকৃতির কাছ থেকে তালিম নেবার জন্য এ ক্যাম্পটি আয়োজন করা হয়েছিল। এ নিয়ে বিডিএসএফ, ঢাবি চ্যাপ্টারের সাধারণ সম্পাদক রওনক জাহান বলেন, ‘প্রযুক্তির আসক্তিতে ডুবন্ত তরুন প্রজন্মকে রক্ষা করার প্লাটফর্মের নাম বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম। যার একমাত্র হাতিয়ার আনন্দদায়ক ভাবে জ্ঞান অন্বেষণ করা, কখনো তা বই পড়ার মাধ্যমে কখনো ভ্রমনের মাধ্যমে। জ্ঞান চর্চা, জ্ঞান প্রচার এবং জ্ঞান উৎপাদনের মাধ্যমে আমাদের বাংলাদেশ হয়ে উঠবে একটি জ্ঞানভিত্তিক, সমতাভিত্তিক ও শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ।’

শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিডিএসএফ

শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিডিএসএফ

রওনকের স্বপ্নের সাথে মিলিয়ে শেষ করতে হয় দীর্ঘ ও বর্ণিল পথে স্টাডি ফোরাম যাত্রা শুরু করেছে মাত্র। এই উদ্যমী তরুণ প্রজন্ম জ্ঞান চর্চার মাধ্যমে নিজেদের বিকশিত, সমৃদ্ধ ও শানিত করার মাধ্যমে একটি অসাধারণ বাংলাদেশ নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে দৃঢ় বিশ্বাস।

শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে মাসিক বিশেষ বক্তৃতা শেষে।

শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে মাসিক বিশেষ বক্তৃতা শেষে।

আজকে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এবং বিডিএসএফ এর দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে যেসব ক্যাম্পাসে বাংলাদেশ স্টাডি ফোরামের কর্মকাণ্ড চলছে সেখানে দৈনিক বুক টক ও আইডিয়া টক চলবে। আমাদের কাজই পারে শহীদদের ত্যাগের সম্মান দিতে। আজকে বাংলাদেশ স্টাডি ফোরাম, সরকারী তিতুমীর কলেজের ৭ম পাবলিক লেকচার আয়োজিত হতে যাচ্ছে! প্রতিটি ক্যাম্পাস নিজ নিজ ভাবে শহীদ বৃদ্ধিজীবী দিবস এবং বিডিএসএফ এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করতে পারবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, শেকৃবি, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, তিতুমীর কলেজ সহ অন্যান্য ক্যাম্পাসের বন্ধুরা নিজ নিজ পরিকল্পনা অনুযায়ী অনানুষ্ঠানিকভাবে কোন প্রোগ্রাম হাতে নিতে পারেন।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলছে নিয়মিত সাপ্তাহিক আড্ডা ও লেকচার!

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলছে নিয়মিত সাপ্তাহিক আড্ডা ও লেকচার!

এই ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও বাংলাদেশ স্টাডি ফোরামের দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে একটি আন্তর্জাতিক কনফারেন্সের আয়োজন পুরোদমে চলছে। আগামী ২২-২৩ ডিসেম্বর আয়োজিত উক্ত কনফারেন্সে ডজনখানেক দেশ থেকে প্রথিতযশা পণ্ডিতগণ তাদের গবেষণাপত্র পেশ করবেন। তাদের সাথে অংশ নিচ্ছেন বাংলাদেশের শিক্ষক, গবেষক, একাডেমিশিয়ান ও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ। নবীন-প্রবীণের সমণ্বয়ে একটি জ্ঞানের উৎসব হবে সে কনফারেন্স এই আশা করা হচ্ছে।

মাত্র দুই মাস আগে কাজ শুরু করে তিতুমীর কলেজে সাতটি পাবলিক লেকচার অনুষ্ঠিত হলো!

মাত্র দুই মাস আগে কাজ শুরু করে তিতুমীর কলেজে সাতটি পাবলিক লেকচার অনুষ্ঠিত হলো!

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে সকল শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি সহানুভূতি ও সহমর্মিতা জানাচ্ছে বিডিএসএফ। আর দুই বছরের এই অবিস্মরণীয় যাত্রায় বিভিন্নভাবে অংশ নেওয়ার জন্য স্টাডি ফোরামের প্রতিটি সদস্য, শুভাকাঙ্খী, বন্ধু, সমালোচক সবাইকে শুভেচ্ছা। আপনাদের প্রত্যেকের অবদানের ফলেই স্টাডি ফোরাম এতদূর আসতে পেরেছে এবং ভবিষ্যতে অনেকদূর যাওয়ার স্বপ্ন দেখছে।

-সাবিদিন ইব্রাহিম

Spread the love

Related Posts

Add Comment

error: Content is protected !!