মাহমুদ দারউইশের ‘জমজমাট গায়েবানার হাজিরায়’

Reading Time: 3 minutes

ফিলিস্তিন তার নিজ ভূমিতেই নির্বাসিত।যুগ যুগ ধরেই এই নির্বাসনের যন্ত্রণায় দগ্ধ হয়ে আসছে তাদের সোনালী স্বপ্নগুলো।তারপরেও এই দগ্ধভূমির ছাইয়ের ভেতরে কিছু ফিনিক্স পাখির মতো মৃত্যুঞ্জয়ী আত্মার কন্ঠ ধ্বনিত হয়। যা স্থান,কাল ও সময়ের সীমা পরিসীমার গন্ডি পার হয়ে নির্যাতিত জনপদের কন্ঠে ধ্বনিত হয়।

বই পরিচিতি বইঃ জমজমাট গায়েবানার হাজিরায় মূলঃ মাহমুদ দারউইশ অনুবাদকঃ ইসফানদিয়র আরিওন প্রকাশক: পাঠক সমাবেশ

তেমনি এক কন্ঠস্বর হলো ফিলিস্তিনের কবি মাহমুদ দারউইশ। অন্যায়ের বিরুদ্ধে ক্ষুধার্ত বাঘ,সাম্য ও ন্যায়ের প্রয়োজনে বিপ্লবী প্লেকার্ড,প্রেম ও ভালোবাসায় বিনত হৃদয়,দেশ গন্ডির সীমানাকে ছাড়িয়ে উদার মানবিক বিশ্ব।এই তার পরিচয়।নির্যাতিত ও উদ্বাস্তু জীবনের তিক্ত অভিজ্ঞতাকে ঝেড়ে ফেলে দিয়েও,আগামীর পৃথিবীর সোনালী স্বপ্ন দেখেন।দ্ব্যর্থহীন কন্ঠে এভাবে বলতে পারেনঃ “স্বপ্ন দেখি এমন এক পৃথিবীর যার হৃদয় হবে পৃথিবীর মানচিত্রের সমান”।তার জেলখানায় বসে লেখা কবিতা ওম্মী( My Mother),বিত্বাকাতুল হাওয়িয়াহ(Identity Card) আরবী ভাষাভাষী সহ সকল সাহিত্যপ্রেমী মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে রেখেছে।

তবে এ সকল পরিচয়ের পাশাপাশি মাহমুদ দারউইশ তার জীবন-মৃত্যুর এই দ্ব্যর্থক অন্তর্লীন উপলব্ধিকেও কবিতার অক্ষরে অক্ষরে তুলে ধরেছেন। জিদারিয়াহ(দেয়ালচিত্র) এবং মৃত্যুর পূর্বে লেখা তার সর্বশেষ কবিতা লা-ইবুন নারদ(পাশা খেলুড়ে) তার বিখ্যাত দুটি কবিতা। বহুভাষাবিদ,কবি ও সাহিত্য সমালোচক Izfandior Arion এ দুটি কবিতার সরস অনুবাদ,টীকা ও ভূমিকা লেখেন।তবে এ বইটি নিছক অনুবাদের বই বললেই ভুল হবে।লেখক বহু ভাষাভাষি হওয়ার কারনে কবিতার মূল সার নির্যাসকে অনুবাদের ছায়ায় তুলে এনেছেন।অনুবাদের পাশাপাশি মূল কবিতার দার্শনিক,পৌরাণিক,সূফিতত্ত্ব,সাহিত্যিক ও বৈজ্ঞানিক অন্তর্পাঠ্যতা তুলে ধরতে পেরেছেন।যা অনুবাদ সাহিত্যে খুবই বিরল ও অসম্ভব!

কবি তার জিদারিয়াহ(দেয়ালচিত্র) কাব্যে এক প্রতিরোধের দেওয়াল গড়েছেন।কবিতার এই দেওয়ালে চিত্রিত করেছেন জন্ম ও মৃত্যুর মাঝে অসংখ্য মেহনতি অভিজ্ঞতার খন্ড খন্ড ছবি। কবি দারউইশ কবিতার দাবী নিয়ে গণমানুষের সামনে হাজির হন মৃত্যু অভিজ্ঞতার এক শাশ্বত বয়ান নিয়ে।এ যেন জীবনকে মৃত্যুর ভেতর দিয়ে বইয়ে নেওয়া অভিজ্ঞতা আর কবিকেই নিজের হাতে তৈরী করা এক দেয়াল চিত্র!জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে থেকে কবি যেনো বারবার অনুভব করতে চেয়েছেন তার জীবনদর্শনের পরমানন্দকে।তার এই আনন্দ যেনো অনেকটা ওমর খৈয়ামের শেষ জীবনের মতো।(A strange farrago of grave and gay)।

নিজের চেতন অনুভূতির মধ্যে বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের অস্তিত্বের সন্ধান।

কবির ভাষায়ঃ

আমি নিজেকে হাজির পেয়েছি জমজমাট গায়েবানায়।

এবং যখনই আমি আমার নিজেকে খুঁজেছি অন্যকিছু পেয়েছি আমি।

এবং যখনই আমি তাদেরকে খুঁজেছি আমার ভিনদেশী নিজেকে ছাড়া আর কিছুই তাদের মাঝে পাইনি,

না আমি কোন অসাধারণ জনতার ঝাঁক।

এমনি ভাবে কবিতার পরতে পরতে জীবন-মৃত্যুর এক দর্শনোদ্ভূত কান্তিবিদ্যাকে তুলে ধরেছেন।

তেমনিভাবে লা-ইবুন নাদার(পাশা খেলুড়ে) কবির জীবনের সর্বশেষ রচনা।যেখানে তিনি জীবনকে একটি আত্নপরিচয় ও অস্ত্বিতের এক বিস্ময়কর প্রমাণে হাজির হন।জীবন-মৃত্যুর এই এমভিবেলেন্সে কখনো জীবনকে অসম্ভব মনে হয়।আবার যখন আশা সঞ্চিত হয় হয়, তখন যেনো সবই সম্ভব।এ যেনো এক গুটির চাল।পাশা খেলা।কবির কাছে জীবন এক দৈবক্রমিক চক্র ছাড়া আর কিছুই নয়।

আমি যদি আমি না হতাম তাহলে দ্বিতীয়বারের মতো আমি আমিই হতাম।

এ কবিতার কয়েকটি চুম্বক অংশঃ

>আমি যদি আমি না হতাম তাহলে দ্বিতীয়বারের মতো আমি আমিই হতাম।

> আবাবিল পাখি আমি না-ও হতে পারতাম

যদি বাতাস ওভাবে না চইতো,

আর বাতাস তো মুসাফিরদের ভাগ্য…..

কবিতা হলো গুটির চাল যেনো

কখনো বিকীর্ণ হয়,কখনো হয়ই না

অতঃপর শব্দ এক এক করে পড়ছে

যেনো বালির উপর পাখির পালক পড়ছে

> আমি আমার হৃদয়কে ভালোবাসার ব্যাপারে প্রশিক্ষণ দিয়েছি যাতে সে গোলাপ ও কাঁটাকে যুগপৎভাবে জায়গা দিতে পারে।

> মুসাফিরদের সৌভাগ্য যে,আশা আর হতাশা

যেনো যমজ দুই ভাই অথবা তার প্রত্যুৎপন্ন কবিতা।

> হে সবুজ ভূমিঃ ‘আমি সবুজ ভালোবাসি’।আলো আর পানির উপর একটা আপেল দুলছিলো।সবুজ।তোমার রাত সবুজ।তোমার প্রভাত সবুজ।আমাকে আদর করে লাগিয়ে দাও….

মায়ের হাতের আদরের মতো একমুষ্টি বাতাসে।

সবুজ বীজ সমূহের আমিও এক সদস্য…

> দৈববশত বেঁচে থাকতে দশ মিনিটই যথেষ্ট

এবং চৈতন্যের অনস্তিত্বকে হতাশ করতে

কে আমি যে,চৈতন্যের অনস্তিত্বকে হতাশ করব?

তবে লেখকের এই ঝরঝরা অনুবাদকে পড়তে কোন বেগ পেতে হয় নি।মনে হয় যেনো নিজের লেখা কোন গদ্য ছন্দ কবিতা।কবির জীবন-মৃত্যুর সন্নিকটে অভিজ্ঞতার মিশেলে এক দর্শন-কাব্য এই কিতাবটি।

সবশেষে সুখপাঠ্য🙂

হোসাইন কামাল

ইংরেজি বিভাগ,কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

Spread the love

Related Posts

Add Comment

error: Content is protected !!